প্রত্যেকের জীবন এক একটি উপন্যাস, প্রথম পাতায় জন্মের শেষ পাতায় মৃত্যু!

The সুইসাইড Status

Share:

“আত্মহত্যার চেষ্টা করেছি অনেকবার কিন্তু কিভাবে যেন বেঁচে যাই “

[fb_pe url=”https://www.facebook.com/permalink.php?story_fbid=2235956459968854&id=100006635655286″ bottom=”30″]

আমার এক বাংলাদেশী ফেসবুকের বন্ধু এক মাস আগে, বেশ কয়েকদিন ধরেই এমন স্ট্যাটাস দিচ্ছিলেন তার ফেসবুকের দেওয়ালে। বেশ কয়েকটা এমন নেগেটিভ স্ট্যাটাস দেখার পরে আমি আর থাকতে না পেরে ওনার স্ট্যাটাসে কমেন্ট করেছিলাম।

“আপনার মৃত্যু ভয় আছে। আপনি পারবেন না, ছেড়ে দিন চেষ্টা”

[fb_pe url=”https://www.facebook.com/permalink.php?story_fbid=2235956459968854&id=100006635655286&comment_id=2236273519937148″ bottom=”30″]

ওনার অন্যনা বন্ধুরা অবশ্য ওনাকে রীতিমতো আত্মহত্যা না করার পরামর্শ ও আত্মহত্যার কূফল বোঝাতে ব্যস্ত ছিলেন। আমার কমেন্টে HaHa reaction দিয়ে আবার সেই একই স্ট্যাটাস। আমি বাধ্য হয়ে ওনাকে unfriend করে দেই। আমি আশাবাদী মানুষ, এত হতাশা সহ্য করতে পারি না। মনে মনে ভেবেছিলাম, মরবি তো মর, স্ট্যাটাস দিয়ে মরার কি আছে।

প্রায় এক মাস পর হঠাৎ মনে পড়লো ওই বন্ধুর কথা। ভাবলাম দেখি তো ফেসবুক প্রোফাইলে কোনো update আছে কি? থাকলে বেঁচে আছে, আর না থাকলে টেসে গেছে। ও মা!! আমি ওনার প্রোফাইলে গিয়ে দেখি উনি খোশ মেজাজে ফেসবুক চালিয়ে যাচ্ছেন। আমার গা রি-রি করে জ্বলে গেল। ওনার লাষ্ট স্ট্যাটাসে কমেন্ট করলাম।

গত মাসে আপনি ক্রমাগত সুইসাইড করবেন বলে স্ট্যাটাস দিচ্ছিলেন। আমি ভেবেছিলাম আপনি সত্যি আত্মহত্যা করবেন। অনেকেই অপনার স্ট্যাটাসে আপনাকে শান্ত হতে বলছিলো, আপনাকে বোঝাচ্ছিলো। বেশ কয়েক দিন ধরেই আপনার নেগেটিভিটি আমার উপরেও ভর করছিল। শেষমেশ আপনার সেই নেগেটিভ তরঙ্গের বাইরে আসার জন্য আপনাকে unfriend করে unfollow করে দিয়েছিলাম। হয়তো সত্যি বলতে আপনার সুইসাইড আমি দেখতে চাইছিলাম না তাই।

আজ হঠাৎ মনে হলো, আপনি বেঁচে আছেন কি দেখি তো। আপনার প্রোফাইল এসে দেখি আপনি দিব্বি খোশ মেজাজে বেঁচে আছেন, আত্মহত্যা করেননি।

এখন আমার একটাই কৌতুহল, আপনি কিভাবে নিজেকে বাঁচিয়ে ফেললেন? আপনার ভক্ত ও বন্ধুবান্ধবের কমেন্টের জোরে? নাকি মৃত্যু ভয়ে?🤣

[fb_pe url=”https://www.facebook.com/permalink.php?story_fbid=2261783790719454&id=100006635655286&comment_id=2261925810705252″ bottom=”30″]
Share:
Written by
Sanjay Humania
Join the discussion

2 comments

Sanjay Humania

আমার নিঃশব্দ কল্পনায় দৃশ্যমান প্রতিচ্ছবি, আমার জীবনের স্মৃতি, ঘটনা ও আমার চারপাশের ঘটনার কেন্দ্রবিন্দু থেকে লেখার চেষ্টা করি। প্রতিটি মানুষেরই ঘন কালো মেঘে ডাকা কিছু মুহূর্ত থাকে, থাকে অনেক প্রিয় মুহূর্ত এবং একান্তই নিজস্ব কিছু ভাবনা, স্বপ্ন। প্রিয় মুহূর্ত গুলো ফিরে ফিরে আসুক, মেঘে ডাকা মুহূর্ত গুলো বৃষ্টির সাথে ঝরে পড়ুক। একান্ত নিজস্ব ভাবনা গুলো একদিন জীবন্ত হয়ে উঠবে সেই প্রতীক্ষাই থাকি।
– Sanjay Humania (সঞ্জয় হূমানিয়া)